Melbondhon
এখানে আপনার নাম এবং ইমেলএড্রেস দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন অথবা নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন
widgeo

http://melbondhon.yours.tv
CLOCK
Time in Kolkata:

প্রচেৎ গুপ্তের 'আমার যা আছে'

Go down

প্রচেৎ গুপ্তের 'আমার যা আছে'

Post by স্বপ্নজিত on 2012-06-12, 13:36

বাংলা সাহিত্যে নিজেকে পুরোপুরি নিকম্মা হিসেবে দেখানো, অথচ দার্শনিক আত্মকাহিনী বক্তা চরিত্রের সংখ্যা নেহাত কম নয়। প্রফুল্ল রায়ের ‘আমাকে দেখুন’, প্রেমাঙ্কুর আতর্থীর ‘মহাস্থবীর জাতক’ থেকে আরম্ভ করে নীললোহিতের নীলুকে নিয়ে গল্পগুলো – এরকম অনেক আরো উদাহরণ রয়েছে। আর অবশ্যই আছে হিমু।

এই লিস্টে আরো একটা সংযোজন প্রচেৎ গুপ্তের ‘আমার যা আছে’। গল্পটা এই গল্পের প্রধান চরিত্রের আত্মচরিত। যে চরিত্রকে তার নিজের ভাষায় বলতে গেলে বলতে হয় ‘একনম্বরের ফ্যা-ফ্যা রাম’। তার নিজের কোনো কাজকর্ম নেই, অনিচ্ছুক উদ্যোগে অন্যের উপকার করে বেড়ানোই তার একমাত্র কাজ। এরকম একজনকে কাছে পেলে দুষ্টু লোকেরা হয়তো তার সু্যোগ নিতো, তাই সেই সব লোকেদের সে ধরা দেয়না (শুধু যারা খুব ছোট্টোখাট্টো দুষ্টু, তাদের কথা আলাদা। তাদেরকে সে ভালো করে দেয়, আর সেইসব দুষ্টুরা অচিরেই ফ্যা-ফ্যা রামের ভক্ত হয়ে পড়ে)। কে না জানে বঙ্গবাসীমাত্রই সজ্জন, যদি কেউ দূর্জন হতে হয়, তবে তা তার প্রতিবেশীরা। তবে কি আশ্চর্য, খুব সহজেই তার চারপাশের অন্য ভালো লোকেরা তাকে চিনতে পারে। এই ভালো লোকেরা আসে রকমারী পরিচিতি নিয়ে। কখনো তারা আলিপুর চিড়িয়াখানার ‘দি ওল্ডেস্ট টাইগার ট্রেনার’, কখনো তারা শুধুমাত্র রবীন্দ্রনাথের বই-বাঁধাইওলা (এরকম প্রফেশান আছে জানা ছিলোনা) বা ডেকে ডেকে বেকার ছেলেদের চাকরী দেয় এইরকম সব খানদানী পিসেমশাইরা। তাদের সাথে ফ্যা-ফ্যা রামের -এর খুব ভাব (অবশ্য মাঝে মাঝে একটু একটু আড়িও)।

প্রচেৎ (না প্রচেত? সান হোসে লাইব্রেরীর তালিকায় দুটো নাম পাচ্ছি) গুপ্তের লেখার হাত খুবই ভালো। উপভোগ্য লেখার ধাঁচ, যা গল্প না হলে প্রায় রম্য রচনার পর্যায়ে পড়তো। পড়তে পড়তে কোথাও বাঙালী মনের চিরসুপ্ত রোমান্টিসিজমে টঙ্কার লাগে। মনে হয়, ‘আরে, পৃথিবীটাতো এরকমই হওয়া উচিৎ ছিলো!’ প্রায় ভুলেই যাই প্রশ্ন করতে, পৃথিবীটা কি সত্যিই এরকম? কোথাও কি একটু রিয়্যালিটির ঘাটতি থেকে যাচ্ছে না? বিশ্ব-বেকার ছেলেরা কি শুধু পরের উপকার করে বেড়ায় বা ফ্যা-ফ্যা রামের বাড়িওলার ছেলের ক্ষেত্রে, শুধুই মন দিয়ে চাকরীর পরীক্ষা দিতে থাকে? তারা কখনো হতাশায় ড্রাগের নেশায় পড়েনা? চুরি-ছিনতাইয়ের বেলাইনে যায়না? মেয়েরা হয় রবীন্দ্র রচনাবলী পড়ে বা ফ্যা-ফ্যা রামেদের প্রেমে পড়ে? তার গল্পে দারিদ্র্য আছে কিন্তু তিক্ততা নেই, অসুন্দর আছে কিন্তু অশালীন নেই, আর আছে একগাদা গুড-উইল, বা লোকেদের ভালো করার ইচ্ছে। সে সেই ইচ্ছের জোরে পৃথিবীটাকে পালটে দিতে চায়। তার ভাষায়, অতটুকুই ‘আমার যা আছে’।

এসব সত্ত্বেও তার লেখার সাফল্য হলো, ঘোরতর অবিশ্বাসীকেও সে ভাবায়, পৃথিবীটাকে সুন্দর করার জন্যে আর একবার চেষ্টা করলে হয়না?

---

অ্যামাজন.কম থেকে বাংলা ভাষার প্রথম কিন্ডল বই "হরেক মাল সাড়ে ছ'টাকা"
পড়া যায় যে কোনো কম্পিউটারে/ফোনে
http://acro.batcave.net

স্বপ্নজিত
আমি নতুন
আমি নতুন

পোষ্ট : 17
রেপুটেশন : 4
নিবন্ধন তারিখ : 01/04/2012

http://acro.batcave.net

Back to top Go down

Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum