Melbondhon
এখানে আপনার নাম এবং ইমেলএড্রেস দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন অথবা নাম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন
widgeo

http://melbondhon.yours.tv
CLOCK
Time in Kolkata:

মেষ (২১ মার্চ - ২০ এপ্রিল ) : বসদের বৈশিষ্ট্য

View previous topic View next topic Go down

মেষ (২১ মার্চ - ২০ এপ্রিল ) : বসদের বৈশিষ্ট্য

Post by Admin on 2013-08-04, 21:22

কিছুটা অলস প্রকৃতির কর্মকর্তা কিংবা কর্মচারীদের কাছে মেষ বস্ প্রিয় বলে গণ্য হবে না। আপনি যদি নিজের স্খায়ী একটা চাকরি খোজবার আগে সাময়িকভাবে কোন একটা চাকরি করে ফাঁকা সময়টাকে কাজে লাগাবার কথা ভাবেন, কিংবা আপনার অবস্খা যখন মোটামুটি ভালো তখন শুধু হাতখরচের টাকা যোগাবার কথা মাথায় রেখে কোথাও চাকরি করবার কথা ভাবেন তো আপনাকে শক্তভাবে পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে যে সেখানকার বস মেষ জাতক হলে আপনার এটা প্রয়োজন নেই। এই মানুষটি কিছুতেই উদ্যমহীন আর প্রাণপ্রাচুর্যের অভাবগ্রস্খ কর্মচারী কিংবা কর্মকর্তাদেরকে সহ্য করতে পারে না। সে আশা করবে যে আপনি কোম্পানির উন্নতির ব্যাপারে ঠিক ততটাই নিবেদিত আর স্বেচ্ছায় অনুরক্ত হবেন যতটা সে নিজে। সম্ভবত সে আপনাকে দ্রুত নিযুক্ত করবে এবং প্রমোশনও দিবে কিন্তু আপনার ভুল ধরবার ক্ষেত্রেও সে দেরি করবে না।

তার যদি মনে হয় যে আপনি আপনার পূর্ণ ক্ষমতাকে কাজে লাগাচ্ছেন না আপনার কপালে রুক্ষ, বদমেজাজী আর সরাসরি এমন কিছু উক্তি জুটবে যা আপনাকে মাটির সাথে মিশিয়ে দেবে, তারপরও আপনি হয়তো দ্বিতীয়, তৃতীয় এমনকি চতুর্থ একটা সুযোগও পাবেন যদি আপনি ভুল স্বীকার করেন আর পরবর্তীতে ভালো কাজ দেখাবার প্রতীজ্ঞাবদ্ধ হন। মেষ জাতক বসের সাথে কাজ করতে হলে প্রস্তুতি নিন প্রায়ই ওভারটাইম করবার জন্যে। সে এটাই প্রত্যাশা করবে। অপরদিকে যদি সে মেষরাশির বৈশিষ্ট্যসূচক জাতক হয়ে থাকে তবে আধঘন্টা দেরি করে অফিসে আসবার জন্যে সে ঘড়ি দেখে খুতখুত করবে না আর আপনাকে তেমন কিছু বলবেও না, আবার লাঞ্চে যদি আধঘন্টা কিংবা একঘন্টাও দেরি করেন তাহলেও তেমন কিছু বলবে না। সে নিজেও ঘড়ি দেখে দেখে কাজ করবার মানুষ নয়। নিজের প্রখর স্বতন্ত্র ব্যক্তিবোধের কারণে সে খুব ভালোভাবেই জানে যে আপনার ভেতরের সৃষ্টিশীলতা ঘড়ি মেপে মেপে সকাল নটার বাতির মতো জ্বেলে দিলে জ্বলে ওঠবে কিংবা বিকেল ৫টায় বন্ধ করে দিলে আবার দমে যাবে এমনতো নয়। সে এমন একজন বস্ যে আপনাকে হয়তো একটা শনিবার বেশি কাজ করতে বলে বসবে, আবার বেসবল খেলায় অংশগ্রহণ করবার জন্য দাদীর মৃত্যুর অজুহাতে ছুটি চাইলে না করবার কথা তার নয়, এমনকি সত্য বললেও হয়তো ছুটিটা পেতে আপনার সমস্যা হতো না। সে ঠিকই বুঝে নিতো হঠাৎ কোন্ আবেগে আপনার পছন্দের টিমের জন্য আপনার মনটা এই বসন্তে ব্যাকুল হয়ে উঠেছে।

যদিও আপনার ছুটিছাটা, বেতন, বেতন বৃদ্ধি ইত্যাদি ব্যাপারে সে খুবই উদার আর মহত্ত্বের নজির দেখাবে তবুও সে সম্পূর্ণভাবে প্রত্যাশা করবে যে আপনার যাবতীয় কাজ সেটা হোক আপনার ব্যক্তিগত পরিকল্পনা, বা আবেগের বন্ধন, ভ্রমণের প্রতিশ্রুতি কিংবা যাই কিছু - যদি অফিসে হঠাৎ কোন গুরুত্বপূর্ণ কাজের উদয় হয় তো আপনি সব কাজ ফেলে সেটাই আগে সামাল দেবেন।

বলতে চাইনা তবু বলছি, আমি একজন মেষ বস্কে চিনতাম যার একজন দক্ষ কর্মকর্তাকে অফিস সময়ের বাইরেও কাজ করবার জন্য প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল। সেই দিন এই কর্মকর্তার কনে সাজবার কথা। আর সেদিনই ব্যবসার জরুরি প্রয়োজনে বস্ তাকে থাকতে বললেন। যদিও সেই মেয়েটি হয়তো মনে মনে ভেবেছিল তার ছয়জন সঙ্গিনী যারা তাকে কনে সাজতে এবং অন্যান্য ব্যাপারে সাহায্য করবে, আর একজন মেয়ে যে ফুল সাজিয়ে ছিটিয়ে ছিটিয়ে ফেলবে, একজন আংটিটা রাখবে, আর ৩০০ অতিথিকে স্বাগত জানাতে সে আর কী কী করবে।

মেষজাতক বস্ বুঝতে পারলেন না যে, মিলিয়ন ডলারের কাজ হবে, তাছাড়া কোম্পানিটা বেশ খ্যাতিও অর্জন করতে সক্ষম, এরকম একটা জরুরী মিটিং এর খাতিরে কেন সেই অনুষ্ঠানটি এবং হানিমুন-এ যাওয়া স্খগিত করা যায় না। সে নিজেতো এরকম জরুরি অবস্খায় নিজের বিয়েটা পিছিয়ে দিত, তো কেন আপনি সেটা পারবেন না? সমস্যাটা কী? আপনি কি বিশ্বস্ত নন? - এই তার মনের অবস্খা। স্বীকার করছি এটা একটা চরম অবস্খা, কিন্তু আপনি আগে ভাগেই তো সতর্ক হলেন।

এরকম মেষ বস্ খুবই দুর্লভ যে ক্রিসমাসের সময় একজন সাধারণ চাকরিদাতার থেকে বেশি উদার নন। গ্রহ নক্ষত্রের একটা কঠিন প্রভাব তার উপর যদি থাকে তবে আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন যে আপনার মেষ বস্ আপনাকে বেশ ভালো অংকের একটা বোনাস দেবে যেটা আপনার বন্ধুরা যারা অন্য অফিসে কাজ করেন তাদের কেউই পাবেন না। আবার বড়সড় একটা উপহারও পেয়ে যেতে পারেন, যার জন্যে আপনি বহুদিন ধরে অপেক্ষা করে আছেন। একজন মেষ বস্ সাধারণত কৃপণ স্বভাবের নন (যদি না তার উপর চাঁদের প্রভাব থাকে কিংবা তেমন কোন শক্তি কাজ করে)।

অন্যান্য রাশি জাতকদের মতো মেষ বস্ সহজে প্রশংসায় পটবার মানুষ নন, কিন্তু আপনি যদি মাঝে মাঝেই তাকে সৎভাবে প্রশংসা করেন তো ভালো বই মন্দ হবে না। আপনি যদি তাকে সরাসরিভাবে প্রশংসা করেন যে তিনি একজন সুযোগ্য বস্ এবং আপনার মতে তিনি শহরের সবচে স্মার্ট বস্দের একজন তো আপনার চাকরি স্খায়ী বলে ধরে নিতে পারেন। অবশ্য আপনি যদি সত্যই বিশ্বাস করেন তবেই এ প্রশংসা করবেন, নচেৎ নয়। যে কর্মকর্তা গরগর করে তার প্রশংসা করে শুধু নিজের সুযোগের লোভে, কিন্তু আদতে সে আসলে তার বস্ হবার সামর্থ আর যোগ্যতার ব্যাপারে সন্দিহান, তাকে রীতিমত ঘৃণাই করেন একজন মেষ জাতক যিনি ঐ অফিসের বস্। মেষজাতকেরা মানুষ চিনতে পারদর্শী নয়, কিন্তু তারা নিজেদের সম্বন্ধে অন্যের সমালোচনার ব্যাপারে এতই সংবেদনশীল যে সে অনায়েসেই বুঝতে পারে তার চারপাশে দিনের পর দিন যে মানুষগুলো রয়েছে এরা তাকে সত্যই পছন্দ করে না অপছন্দ করে।

বলতে চাইনা তবু বলছি, আমি একজন মেষ বস্কে চিনতাম যার একজন দক্ষ কর্মকর্তাকে অফিস সময়ের বাইরেও কাজ করবার জন্য প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল। সেই দিন এই কর্মকর্তার কনে সাজবার কথা। তার গোপন চাহিদা হলো সবার যেন তাকে ভালো লাগে। আপনি তার দৃঢ় আত্মবিশ্বাস আর বাইরের শক্ত খোলসটা দেখে কখনও কল্পনাও করবেন না যে তার এমন চাহিদা থাকতে পারে, বস্তুত বাইরের এইসব আড়ম্বরের নিচে সে মানুষদের সমর্থনের জন্য ব্যাকুল হয়ে থাকে, সে হতে চায় তাদের প্রিয় মানুষ। আর এই সহচরদের তালিকা থেকে আপনি কিংবা তার স্ত্রী কিংবা তার কুকুর এমনকি এ্যালিভেটরে দেখা হওয়া অপরিচিত মানুষটিও বাদ জাননা। তার আত্মনির্ভরশীলতার আবরণ ঠেলে সে চায় যে সে নিজে নিজেকে যতটুকু সমর্থ মানুষ বলে জানে সেটা আর দশজনও জানুক এবং মানুক। আর কেউ এটা মানলে তার সুখের অন্ত থাকে না। অপরদিকে, তার যদি মনে হয় যে তার নিচে যারা কর্মরত এরা তার মর্ম, ক্ষমতা কিংবা তার পদ্ধতির ব্যাপারে নিচু মত পোষণ করে তাহলে তার মতো দু:খী, বদমেজাজী আর খুব বাজে রকমের অবহেলাকারী খুজে পাওয়া মুশকিল।

আপনি যদি শুনে থাকেন যে কোম্পানিটা দেওলিয়া হতে চলেছে তো তাড়াহুড়ো করে আরেকটা চাকরির সন্ধানে নেমে পড়বেন না। আপনার একটা নতুন চাকরি নাও লাগতে পারে। যদি কেউ ভরাডুবির হাত থেকে উঠিয়ে, অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের ঠিক শেষ মুহূর্তটাতে এসে কোম্পানির বিপর্যয় ঘটা রোধ করতে পারে আর পুরো কার্যক্রমটাকে শ্যাউলার সমুদ্র পারি দেবার মতো সহজ করে তুলতে পারে তো সে আপনার মেষ জাতক বস্টি ছাড়া আর কেউ নয়। সে আত্মনির্ভরশীল, সাহসী আর ঝুঁকি নিতে সংকোচহীন। তার চালক প্রাণশক্তিতে ভরপুর আর প্রায় সবসময়ই ভাববাদী। (সে হয়তো সমানভাবে স্খিরচিত্ত বৃশ্চিকের বিরুদ্ধে হেরে যাবে, আর প্লুটোর ক্রমাগত রুক্ষতার সাথে পেরে উঠতে অপারগ, কিন্তু তার পরও সে তার ক্ষতি পুষিয়ে উঠে অন্য কোথাও কোন না কোন ভাবে জয়লাভ করবে।)

মেষেরা উদ্ভোধন করে। অফিসে যদি কোন পরামর্শ লিখে ফেলবার মতো বাক্স থাকে আর আপনি যদি সেটাতে প্রয়োগ করার মতো, সৃষ্টিশীল বেশকিছু পরিকল্পনা লিখে ফেলতে পারেন তো নিশ্চিতভাবে আপনি হুড়হুড় করে অনেকদূর এগিয়ে যাবেন আপনার ক্যারিয়ারে। আপনার মেষজাতক বস্টি পছন্দ করেন এমন কর্মকর্তা যারা কোম্পানির ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবে বিধায় সৎ এবং মৌলিক পরামর্শ দিতে সক্ষম - যতক্ষণ পর্যন্ত আপনার প্রদত্ত ধারণাগুলি পরিষ্কার প্রমাণ করে যে এগুলো স্বয়ং তাকেই অতিক্রম করে যাবার আকাáক্ষা পোষণ করে না।

মেষজাতকদের একটা বড় বৈশিষ্ট্য হলো তাদের ইচ্ছাশক্তি। সে যে কোন ছোটখাট রোগবালাই সহজেই উতরে ওঠে আর বড় কোন অসুখেও সে মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ে না। মাঝেসাঝে সে কোন রোগে আক্রান্ত হওয়াটাকে সে দেরি করাতে পারে আবার কোন অসুখে পড়া থেকে সম্পূর্ণভাবে নিজেকে বাঁচাতে পারে তার প্রচণ্ড ইতিবাচক চিন্তাশক্তির মাধ্যমে। ঠাণ্ডায় বা জ্বরে আক্রান্ত হলে কিংবা ভাইরাস দ্বারা ঘা হলে (প্রচণ্ড জ্বরের সাথে এটা হয়), সে কাপড় চোপড় পড়ে অফিসে রওনা হবে কোন জরুরি ব্যবসায়িক লেনদেনের জন্য, আর সে অফিসে পৌছাবার সাথে সাথেই জ্বরও তাকে ছেড়ে তার ডাক্তারকে বোকা বানিয়ে পালিয়ে যাবে, আর অফিসের কর্মকর্তারা ভেবেই বসবে যে অসুস্খতার অজুহাতে সে আসলে ঘরে বসে বসে কাজ ফাঁকি দিচ্ছিল।

মঙ্গলের প্রভাবে মেষদের ইচ্ছাশক্তি এত চমৎকারভাবে দৃঢ় হয় যে আপনার বস্ (যে সাধারণত জুয়া খেলার ক্ষেত্রে খুবই ভাগ্যবান) যদি রেসের ময়দানে যায় তো বলা যায় না, তার ঘোড়াটাই হয়তো সবার সমুখে চলে আসবে।আপনি বাধ্য এরকম একজন দৃঢ় চরিত্রের মানুষের সান্নিধ্যে প্রভাবিত হতে। সুতরাং প্রত্যাশা করতেই পারেন যে চেচামেচি, হট্টগোল, উত্তেজনা, বিশৃঙ্খলাসহ প্রচুর কাজের চাপ সবই থাকবে এই অফিসে। অফিসে আপনার দিনগুলো কদাচিৎ হয়তো বা ঘটনাবিহীন হবে। তা বাদে সবসময় কোন না কোন কিছু ঘটবেই।

তার মধ্যে অলসতা বা কাজ করবার প্রতি নিস্পৃহতার লক্ষণ বলতে নেই, আর তাই আপনার মধ্যেও এসব না থাকলেই ভালো হতো। আপনার পূর্বোক্ত কাজে বস্ কি ব্যাপারে ক্ষিপ্ত হয়ে আপনাকে চাকুরিচ্যুত করেছে সে ব্যাপারে আপনার নব্য মেষ বস্ এর আগ্রহ খুবই কম। এ ধরনের ক্ষেত্রে যে অফিসের বস্ মেষ সেখানে গেলে তাই তেমন ঝামেলা হবার আশংকা নেই। যেহেতু মেষ জাতকেরা তাদের নিজস্ব কল্পনার মতো করে তাদের ভবিষ্যৎটাকে গড়তে চায় তাই তাদের কাছে অতীতের গুরুত্ব তেমন একটা নেই আর তাই আপনার সেই ব্যাপারেও সে উদাসীন।

কেউ যদি তাকে কষ্ট দিয়ে থাকে তো মঙ্গল জাতক গর্বের সাথে তাদেরকে সেটা জানিয়ে দেয়। তার রাগের মধ্যে প্রচণ্ডতা থাকলেও সেটা দ্রুতই পড়ে যায় (তার রাগের স্খায়িত্ব কম আবার এটা প্রতিহিংসাপরায়ণ নয়, আর রাগ পড়ে গেলেই কিছুই তার মনেও থাকে না), কিন্তু এ সত্ত্বেও যেসব তাকে খুব গভীরে আঘাত করেছে সেগুলো সে স্বীকার করবে না। অন্যকে তার প্রয়োজন - যতটা সে স্বীকার করে তার চেয়ে ঢের বেশি, কিন্তু তার শক্তিটা আসে ভিতর থেকে তাই কাউকে না পেলেও সে একাই তার পথ খুঁজে নিতে পারে।

আপনি যদি তার প্রাণশক্তি ও সাহসের প্রশংসা করতে পারেন - যদিও আপনার পক্ষে তার সাথে তাল মিলিয়ে চলা কঠিন তা সে আপনি যতই তার অনুকরণ করুন না কেন| আপনি যদি তার প্রাণশক্তি ও সাহসের প্রশংসা করতে পারেন - যদিও আপনার পক্ষে তার সাথে তাল মিলিয়ে চলা কঠিন তা সে আপনি যতই তার অনুকরণ করুন না কেন, কিন্তু আপনি যদি তার আবেগী আর তাড়াহুড়ার কাজগুলোর খুটিনাটি তথ্য এবং বিষয়গুলোকে ধৈর্যের সাথে টুকে রাখেন, যেগুলো সে হয়তো খেয়াল করে উঠতে পারেনি তো সে আপনাকে অনেক টাকা মাইনে দেবে, যে পরিমাণ আপনি অন্যকোথাও কাজ করে উপার্জন করতে পারতেন না। আর এতে করে আপনি তার সাথে সারাজীবনও কাজ করে যেতে পারবেন। কৌশলে তার অপরিণামদর্শী সেসব কথা বা পদক্ষেপ রহিত করবার চেষ্টা করুন যেগুলোর কারণে সে হয়তো পরে আফসোস করে। আপনি তাকে ঠাণ্ডা ভাবে মনে করিয়ে দিতে পারেন যে যাদেরকে তিনি তাদের প্রাপ্য রাগটুকু দেখাচ্ছেন তারা ব্যবসার জন্য গুরুত্বপূর্ণ লোক আর তারা বেঁকে বসলে ব্যবসার ক্ষতিও হতে পারে।

আপনার মেষ রাশিজাতক বস্টির ব্যাপারে এটা জানা জরুরি। দৃঢ়ভাবে আত্মনির্ভরশীল মনের অধিকারী হলেও যখন তার ভাববাদী, আশাবাদী প্রাণউৎফুল্লতা তাকে বড় কোন ঝামেলায় ফেলে দেয় তখন আপনার সাহায্য, আস্খা আর বিশ্বস্ততা তার খুবই প্রয়োজন। তার যতোটুকু সহযোগিতা দরকার দিন, আস্খাবান হোন আর বিশ্বস্ত হোন তাহলে আপনার বেতনের খামে কখনই ছোট অংকের টাকা দেখতে হবে না। বৃষ্টির কারণে ট্যাক্সি পেতে দেরি হওয়ায় অফিস আসতে দেরি হলেও চিন্তা নেই, কিংবা চিন্তা নেই আপনার থেকে স্মার্ট আর বয়সে কম, দক্ষ কারোর কারণে চাকরি যাবার। অন্য যে কোন বসের চেয়ে সে আপনার বিশ্বস্ততার প্রতিদান বিশ্বস্ততা দিয়েই দেবে। ড্রয়ারে জরুরি অবস্খার কথা মাথায় রেখে বেশ কিছু এ্যাসপিরিন রাখুন, আপনার হাসিটাকে ঝলমলে করুন, তার রাগারাগিকে গুরুতর ভাবে নেবেন না, আর চাকুরির বিজ্ঞপ্তিসংক্রান্ত পত্রিকাগুলিও ফেলে দিন। আপনি নিশ্চয়ই ব্যাস্ততাই ভালোবাসেন।
avatar
Admin
এডমিন
এডমিন

পোষ্ট : 806
রেপুটেশন : 41
নিবন্ধন তারিখ : 19/11/2010

http://melbondhon.yours.tv

Back to top Go down

View previous topic View next topic Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum